ভক্তের সঙ্গে উত্তেজিত আচরণে ভাইরাল সাকিব!

জাগো বাংলা ডেস্ক প্রকাশিত: ০৮:০৯ পিএম, ০৭ আগস্ট ২০১৮
ভক্তের সঙ্গে উত্তেজিত আচরণে ভাইরাল সাকিব!

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ চলাকালে একজন ভক্তের সঙ্গে ক্ষুব্ধ আচরণ করছেন সাকিব আল হাসান, এমন একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। ভিডিওতে দেখা যায় এক ভক্তের দিকে মারমুখী হয়ে, অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করে তেড়ে আসেন সাকিব।

সোমবার ম্যাচের পর দলের ক্রিকেটাররা যে হোটেলে অবস্থান করছিলেন সেখানেই এই ঘটনার সূত্রপাত।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখা যায়, প্ল্যাকার্ড হাতে থাকা একজন ভক্তের সঙ্গে ক্রোধান্বিত আচরণ করছেন সাকিব। সেখানে উপস্থিত থাকা ভক্তরা পরে সরিয়ে নিয়ে যেতে চায়। একটু পরে আবারও ফিরে আসেন সাকিব, ভক্তটির কথার জবাব দিতে গিয়ে আবারও উত্তেজিত আচরণ করেন তিনি।

সাকিবকে বিরক্ত করা ওই সমর্থকের হাতে ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ লেখা প্ল্যাকার্ড থাকাতেই অনেকে মনে করছেন সে সাকিবকে নিরাপদ সড়ক আন্দোনল নিয়ে প্রশ্ন করেছেন।

সেই ঘটনার বর্ণনা দিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন শেখ মিনহাজ হোসেন। সেখানে তিনি লিখেছেন, ‘সাকিবকে মোটেও নিরাপদ সড়ক সম্পর্কিত কোনো প্রশ্ন করা হয়নি। বরং, ওই তরুণই সাকিবকে বার বার বিরক্ত করছিলেন এবং বাজে ভাষা ব্যবহার করেছিলেন প্রথমে।’

শেখ মিনহাজের সেই স্ট্যাটাসটাই হুবহু এখানে তুলে ধরা হলো। যেটা পড়লে সাকিব কেন ওই ভক্তের দিকে তেড়ে গিয়েছিলেন, সে সম্পর্কে পরিস্কার একটি ধারণা পাওয়া যাবে।

‘সাকিব এক দর্শকের সাথে খুব রাগ করছেন, এমন একটা ভিডিও ভাইরাল হচ্ছে। ওখানে ক্যাপশন হচ্ছে যে, একজন লোক সাকিবকে নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের ব্যাপারে প্রশ্ন করায় সাকিব তেড়ে গেছেন!

প্রথমে বলে নেই, যত যাই হোক, সাকিবের ওভাবে তেড়ে আসা ঠিক হয়নি। আমি সাকিবের তেড়ে আসা সমর্থন করছি না। দেশের আইকন হিসেবে তার আরেকটু সচেতন থাকা উচিত। কিন্তু আসলে প্রশ্নটা মোটেও নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের ব্যাপারে ছিল না। ওই লোক সাকিবের কাছে বারেবার অটোগ্রাফ চাইছিল। সাকিব প্রথমে একটা সেলফি তুলেছে। এরপর আবার ভিডিও করতে চায়। সাকিব তখন ম্যাচ শেষে টায়ার্ড। সাকিব পারবে না বলে সামনে চলে যায়। লোকটা পিছন থেকে ‘ভাব মারায়’ বলে বাজ ভাষা ব্যবহার করে। সাকিব তখন চেতে ফেরত আসে!

ওখানে নিরাপদ সড়ক আন্দোলন সংক্রান্ত কোনো প্রশ্ন ছিল না।

আমাকে বিশ্বাস করতে পারেন। আমি তখনই হোটেলে ঢুকেছি। আশেপাশের সব মানুষ একই কথা বলছিলো। সবাই আরও ওই ছেলেটার উপর ক্ষ্যাপা ছিল। ছেলেটা কেন বেশি বিরক্ত করছিলো, এবং সাকিবকে পিছন থেকে অশালীন মন্তব্য করলো? এখন ফেসবুকে দেখি মানুষ ক্যাপশন দিয়েছে যে, ওটা- নিরাপদ সড়ক চাই- এর ব্যাপারে ছিল। অথচ গতকাল ওইসময় এ ব্যাপারে কোন কথাও হয় নাই!’

সাকিব ক্লান্ত-শ্রান্ত, পরিশ্রান্ত ছিলেন। টানা দু’দিন খেলার পর এমনিতেই ক্লান্ত থাকার কথা, একজন দর্শক হয়তো এ সময় বাজে মন্তব্য করে ফেলেছে; তাই বলে সাকিব এভাবে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করবে, তেড়ে আসবে কারও দিকে- সেটাও কোনোভাবে সমর্থনযোগ্য নয়। সাকিবরা তো আর সাধারণ কেউ নন। তাদের অনেক ফ্যান-ফলোয়ার আছে। তারা দেশের আইকন। তাদের আচার-আচরণ এবং ব্যবহারে আরও অনেক বেশি সতর্ক হওয়া প্রয়োজন। যারা মূল ঘটনা বুঝতে পারছে, তাদেরও বক্তব্যটা প্রায় এমনই।

বিএইচ