আগামী বছরে বিদেশেই বেশি থাকবেন মোদি!

জাগো বাংলা ডেস্ক প্রকাশিত: ০৭:০০ পিএম, ২৬ ডিসেম্বর ২০১৭
আগামী বছরে বিদেশেই বেশি থাকবেন মোদি!

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ২০১৭ সালে বিদেশ সফর নিয়ে খুবই ব্যস্ত থাকতে হয়েছে। তবে এই বিদায়ী বছরে দখল হয়তো আগামী বছরেরও প্রথম ছ'মাস বহন করতে হবে নরেন্দ্র মোদিকে। এখনই মোদির যে সূচি চূড়ান্ত করা হয়েছে। তাতে বছরের প্রথম ছ’মাস দেশে দেশে ঘুরবেন তিনি।

চূড়ান্ত সফরসূচিতে ২০১৮ সালের প্রথম ছ’মাসে শুধু মে মাসের গোটাটাই দেশে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী। জানুয়ারি থেকে জুন-প্রতি মাসেই দফায় দফায় তাকে দেশ-বিদেশ করে যেতে হবে। আবার অন্যদিক দিয়ে ভারতেও বিদেশি অতিথিদের আগমন লেগেই থাকবে। তাদের নিয়েও অনেকটা ব্যস্ত থাকতে হবে প্রধানমন্ত্রীকে।

জানুয়ারি : জানুয়ারিতেই ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রীর ভারতে আসার কথা। এর পরে পরেই আসবেন জর্ডনের রাজা। তাদের নিয়ে ব্যস্ততা শেষ হতে না হতেই সুইজারল্যান্ড সফরে যাবেন নরেন্দ্র মোদি। ২৩ থেকে ২৬ জানুয়ারি দাভোসে বসবে ওয়ার্ল্ড ইকনমিক ফোরামের সম্মেলন। কুড়ি বছর পরে ভারতের কোনো প্রধানমন্ত্রী এই সম্মেলনে যোগ দিচ্ছেন। জানুয়ারিতেই প্রজাতন্ত্র দিবসে আবার ভারতে অতিথি হবেন আসিয়ান দেশের প্রধানরা।

ফেব্রুয়ারি : বছরের দ্বিতীয় মাসে প্রধানমন্ত্রীর যাওয়ার কথা সংযুক্ত আরব আমিরাতে এবং প্যালেস্টাইনে। আশপাশের আরও কয়েকটি দেশেও যেতে পারেন মোদি। ওই মাসেই ফরাসি রাষ্ট্রপতি, কানাডার প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরের কথা রয়েছে।

মার্চ : ওই সময়ে বিমস্টেক সামিট উপলক্ষে নরেন্দ্র মোদি সফরে নেপাল যেতে পারেন।

এপ্রিল : লন্ডনে কমনওয়েলথ সামিটে যোগ দিতে এপ্রিল মাসে লন্ডন যাবেন প্রধানমন্ত্রী।

জুন : সিঙ্গাপুরে আসিয়ান ২০১৮ চেয়ারম্যানশিপ এবং চিনে এসসিও সামিটে যোগ দিতে পারেন প্রধানমন্ত্রী।

বছরের দ্বিতীয়ার্ধ : জুলাই থেকে ডিসেম্বরের সূচি এখনও চূড়ান্ত না হলেও ওই ছ’মাসে প্রধানমন্ত্রী মোদি যেতে পারেন দক্ষিণ আফ্রিকায় ব্রিকস সম্মেলন, আর্জেন্টিনায় জি-২০ সামিট, সিঙ্গাপুরে আসিয়ান এবং ইস্ট এশিয়া সামিটে।

২০১৮ সালে চীন, সৌদি আরবের শীর্ষনেতারা ভারত সফরে আসতে পারেন। মোদিএকবার জাপান যেতে পারেন। আবার রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন আসতে পারেন ভারতে।

বিএইচ