২৯ দিন পর জামিন পেলেন রিয়া চক্রবর্তী

জাগো বাংলা ডেস্ক প্রকাশিত: ১২:২৫ পিএম, ০৭ অক্টোবর ২০২০
২৯ দিন পর জামিন পেলেন রিয়া চক্রবর্তী

বলিউডে চাঞ্চল্যকর মাদককাণ্ডে গ্রেফতার অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী ২৯ দিন পর জামিনে মুক্ত হয়েছেন। একে ‘সত্যের জয়’ বলে দাবি করছেন রিয়ার আইনজীবী।

রিয়া জামিন পেলেও অবশ্য জামিন পাননি রিয়ার ভাই শৌভিক চক্রবর্তী। প্রায় এক মাস জেলে কাটিয়ে অবশেষে জামিনে পেলেন রিয়া চক্রবর্তী। বুধবার (৭ অক্টোবর) মুম্বাই হাইকোর্ট রিয়া চক্রবর্তীকে জামিন দিয়েছে।

বিচারক এস ভি কোতওয়াইয়ের একক বেঞ্চ রিয়া চক্রবর্তীকে জামিন দেয় এক লাখ রুপির বন্ডে। তাকে পাসপোর্ট জমা রাখতে বলা হয়। এছাড়াও জামিন পেয়েছেন স্যামুয়েল মিরান্ডা, দীপেশ সাওয়ান্তরাও। তবে জামিন পাননি অন্য দুই অভিযুক্ত রিয়ার ভাই শৌভিক চক্রবর্তী ও আবদুল বাসিত।

রিয়ার জন্যে আদালতের নির্দেশ, মুম্বাই ছাড়তে গেলেও তদন্তকারীদের অনুমতি নিতে হবে। কোনও ভাবেই বিদেশ যাওয়া চলবে না। দশ দিন বাদে হাজিরা দিতে হবে থানায়।

টানা তিনদিন জিজ্ঞাসাবাদের পর গত ৮ সেপ্টেম্বর গ্রেফতার করা হয় রিয়া চক্রবর্তীকে। মাদক যোগের অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করে নারকোটিস কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)। তখন তাকে ১৪ দিনের বিচারবিভাগীয় হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেয় আদালত। এরপর মেয়াদ আরও বাড়ানো হয়।

গত ১৪ জুন বান্দ্রা বাড়ি থেকে সুশান্ত সিং রাজপুতের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। মুম্বাই পুলিশ সেই ঘটনার তদন্ত শুরু করতেই নানা ঘটনা সামনে আসে। দেখা যায় সুশান্ত মাদক নিতেন। মাদক যোগের কথা স্বীকার করেন রিয়া। তার যুক্তি ছিল কেদারনাথের সময় থেকেই মাদক নেন সুশান্ত। তিনি সুশান্তের ম্যানেজার দীপেশকে দিয়ে সময়ে সময়ে মাদক আনিয়েছেন কিন্তু নিজে মাদক নেননি।

এর আগে সামনে আসে রিয়ার চ্যাট। দেখা যায়, ২০১৯ সালের ২৫ নভেম্বর রিয়াকে জয়া সাহা লেখেন, ‘চারটে ড্রপ দিয়ে দাও কফি বা চায়ে বা জলে। ওকে ওটা চুমুক দিয়ে খেতে দাও। তিরিশ চল্লিশ মিনিট যেতে দাও, দেখতে পাবে কিক। ’ রিয়া উত্তরে থ্যাংক ইউ বলেন জয়াকে। অন্য দিকে, রিয়ার সঙ্গে মিরান্ডা সুশি নামক এক জনের কথা হয় ২০২০সালের ১৭ এপ্রিল। দেখা যায় মিরান্ডা রিয়াকে লিখেছেন, ‘হাই রিয়া, আমাদের জিনিসটা একদম শেষ হয়ে গেছে। ’ তিনি উত্তরে লেখেন, তিনি যার কাছ থেকে ওই বস্তুটি নিয়েছিলেন তা ইতোমধ্যেই শেষ হয়ে গেছে। তার কাছে শুধুই মারিজুয়ানা জাতীয় নেশাদ্রব্য রয়েছে।

এনসিবি জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে রিয়াকে। রিয়ার স্বীকারোক্তিরে পর একে একে এনসিবির জালে ধরা পড়েন অভিনেত্রী রাকুল প্রীত সিং, দীপিকা পাড়ুকোন, সারা আলী খান, শ্রদ্ধা কাপুর। তবে এ নিয়েও সামাজিকমাধ্যমে ওঠে প্রশ্ন। বেছে বেছে শুধু অভিনেত্রীদের কেন ধরা হচ্ছে, অভিযোগ করেন শাহরুখকন্যা সুহানা খানও।