এখন আদালতও কারাবন্দি: রিজভী

জাগো বাংলা ডেস্ক প্রকাশিত: ০৩:০৬ পিএম, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮
এখন আদালতও কারাবন্দি: রিজভী

সরকার আইনকানুনের কোনো ধার ধারে না বলেই কারাগারে আদালত স্থানান্তর করেছে। এর মাধ্যমে আদালতকে কারাবন্দি করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে দলের নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রিজভী বলেন, খালেদা জিয়াকে কারাগারে আটকে রেখে গণতন্ত্রকেই বন্দি করে রাখা হয়েছে। সরকারের উদ্দেশ্য দুটি, একের পর এক মিথ্যা মামলায় দেশনেত্রীর বিরুদ্ধে সাজার স্তূপ বৃদ্ধি করা। আরেকটি হচ্ছে দিনের পর দিন আটকে রেখে তাকে বিপর্যস্ত করা।

তিনি বলেন, গতকাল হুইল চেয়ারে করে খালেদা জিয়াকে নিয়ে আসা হয়েছে আদালতে। হাত-পা নড়াতে তার অসুবিধা হচ্ছিল। তিনি এতটাই অসুস্থ ছিলেন যে হুইল চেয়ারে বসে রীতিমতো কাঁপছিলেন এবং চেয়ার থেকে দাঁড়াতে পারছিলেন না। বারবার দাবি করা সত্ত্বেও তার সুচিকিৎসায় সরকার অবহেলা করেছে। চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী তার যথাযথ স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানো হয়নি।

খা‌লেদা জিয়াকে বিনা বিচারে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে বলৌ মন্তব্য ক‌রেন রিজভী। তিনি ব‌‌লেন, যে মামলায় খালেদা জিয়াকে কারাগারে নেয়া হয়েছিল, সেই মামলায় তিনি জামিনে আছেন। অর্থাৎ তাকে এখন বিনা বিচারে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। তাকে পরিকল্পিতভাবে কারাগারে রেখে নির্যাতন করা হচ্ছে।

রিজভী বলেন, সরকার অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন দিতে চায় না, কারণ এ ধরনের নির্বাচন হলে তাদের লজ্জাজনক পরাজয় হবে। তাই একতরফা, ভোটারশূন্য নির্বাচন করার জন্য সারাদেশে বিরোধী দলশূন্য করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

ঢাকা মহানগরসহ সারা দেশে বিএনপির নেতাকর্মীদের বাড়িছাড়া, পরিবারছাড়া পলাতক জীবন বেছে নিতে হয়েছে। প্রতিদিন রাতেই পোশাকধারী ও সাদা পোশাকধারীরা বিএনপি নেতাদের বাসা-বাড়িতে হানা দিচ্ছে, তল্লাশির নামে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে করা হচ্ছে দুর্ব্যবহার, করা হচ্ছে গ্রেফতার।

এইচএম